1. admin@dailysunrisebangla.com : admin :
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০১:২৩ অপরাহ্ন

দুধের ব্যবসায়ী চাকরি দেয় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে

মোঃ আব্দুর রউফ,ধামরাই (ঢাকা)প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৭ জুন, ২০২১
  • ১৪৫ বার পঠিত

ঢাকার ধামরাইয়ে এক  দুধের ব্যবসায়ী চাকরি দেয় বিমানবন্দরসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে। সে মানুষকে ভুল বুঝিয়ে আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি দেওয়ার নামে প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে এলাকা থেকে লাপাত্তা হয়েছে প্রতারক রুবেল হোসেন। চাকরি না পেয়ে দক্ষিণ হাতকোড়া গ্রামের মানিক মিয়া ও আরিফুল ইসলাম নামে দুইজন পুথক ভাবে ধামরাই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানাগেছে।

রুবেল হোসেনের বাড়ী ধামরাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সুত্রাপুর গ্রামের হযরত আলীর ছেলে ।সে কাওয়ালীপাড়া বাজারের দুধের ব্যবসা করতো বলে জানিয়েছে এলাকাবাসি। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, রুবেল এলাকায় পরিচয় দেয় একজন বড় মাপের অফিসার হিসাবে। যে কোন মন্ত্রনালয়ে চাকরি দেওয়া তার পক্ষে কোন ব্যাপার না বলে চাকরির দেওয়ার নাম করে দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।সাভারসহ বিভিন্ন জায়গায় অফিস ভাড়া নিয়ে চাকরির নামে প্রতারনা করে থাকেন রুবেল হোসেন।

রুবেলের প্রতারনার কাজে সব সময় সহযোগিতা করে থাকেন রুবেলের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান ওরফে রহমত।তিনি সাভারের অফিসে নিয়মিত বসে থাকেন জানা যায়। এই বিষয়ে এলাকাবাসী বলেন, চাকরি প্রত্যাশীদের ইন্টারভিউ নেওয়ার কথা বলে প্রতারক রুবেলের বাড়িতে আসতে বলে সবাইকে। চাকরি প্রত্যাশীরা তার কথা মতই পরদিন মঙ্গলবার সকাল ৭টায় তার বাড়িতে এসে দেখে বাড়িতে কোন লোকজন নেই। ঘরের দরজায় ঝুলছে তালা।তার মুঠোফোন নম্বরটিও বন্ধ রয়েছে। রুবেল এলাকায় আসে নামিদামি ব্র্যান্ডের প্রাইভেট গাড়িতে চেপে। পরনেও থাকে দামি পােশাক পরিচ্ছদ।

এলাকাবাসীর কাছে তিনি রুবেল স্যার হিসাবে পরিচিত।এ সুবাদে তিনি উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মানুষের কাছ থেকে চাকরি দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়।প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে এলাকা থেকে লাপাত্তা হয়েছেন। এ নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় থেকে মানুষ অভিযোগ করেছেন।আরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে ধামরাই থানায় অভিযোগ দায়ের করেন প্রতারক রুবেল হোসেন বিরুদ্ধে। আরিফুলকে মন্ত্রালয়ে চাকরি কথা বলে তার কাছ থেকে ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন।

এছাড়াও মধুডাঙ্গা গ্রামের আব্বাস আলীর কাছ থেকে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা,নবগ্রামের শাজাহানের কাছ থেকে ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা,বাস্তা গ্রামের জাহিদুল ইসলামের কাছ থেকে ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা,কুশুরা গ্রামের আলামিনের কাছ থেকে ৭ লাখ টাকা,আমতা গ্রামের আব্দুর রহমানের কাছ থেকে ৫ লাখ, স‚ত্রাপুর গ্রামের জুয়েলের কাছ থেকে ৬ লাখ ও একই এলাকার শফিকুলের কাছ থেকে ৬ লাখ টাকা,শাহিনুর ইসলামের কাছ থেকে ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা,মোস্তফার কাছ থেকে ৫ লাখ ও মাদারপুর গ্রামের মহসিনের কাছ থেকে ৬ লাখ, স‚ত্রাপুর গ্রামের কলার বেপারি আব্বাস আলীর কাছ থেকে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা, কেরানীগঞ্জের মেম্বারের কাছ থেকে আড়াাই লাখ টাকা,শওকত হোসেনের কাছ থেকে ২০ লাখ টাকাসহ প্রায় ১৮ জনের কাছ থেকে প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী।

এই বিষয়ে ভুক্তভোগি আরিফুল ইসলাম বলেন, রুবেল আমাকে মন্ত্রালয়ে চাকরি দেওয়ার কথা বলে আমার কাছ থেকে ৬লাখ ৫০হাজার টাকা নিয়ে দিনের দিনের পর ঘোরাতে থাকে। আমি টাকা ফেরত চাইলে সে আমাকে বিভিন্ন ভাবে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। অবশেষ আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি। এ ব্যাপারে প্রতারক রুবেলের নাম্বারে একাধিকবার ফোন দিলেও কোন প্রকার সাড়া পাওয়া যায় নি। এই বিষয়ে অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) তম্ময় সাহা বলেন, বালিয়া ইউনিয়নের হযরত আলীর ছেলে রুবেল উপজেলার বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে একটি অভিযোগ পেয়েছি। সেই অভিযোগের আলোকে তদন্ত করেছি। রুবেলর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত ©২০২১ দৈনিক সানরাইজ বাংলা
Theme Customized BY Theme Park BD