1. admin@dailysunrisebangla.com : admin :
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০১:০০ অপরাহ্ন

কালো পাহাড় এর দাম ২০ লাখ টাকা

মোঃ আব্দুর রউফ,ধামরাই (ঢাকা)প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৬ জুলাই, ২০২১
  • ১১০ বার পঠিত

কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ঢাকার ধামরাইয়ে বাইশাকান্দা ইউনিয়নের খাগাইল গ্রামে ৩৫ মণ ওজনের কালো পাহাড়কে দেখতে আসা জনতার ভিড় লাগে প্রতিদিন গরুর মালিক শাজাহানের বাড়ীতে। কালো পাহাড়কে (কোরবানির গরু) ঈদুল আযহার কোরবানির জন্য তৈরি করা হয়েছে। খামারি শাজাহান শখের বশে হয়ে ওই গরুর নাম দিয়েছে কালো পাহাড়। ধামরাই উপজেলার প্রত্যন্ত আঞ্চলের কৃষক শাজাহান মিয়া স্বাস্থ্য সম্মতভাবে এই ষাঁড়টি পালন করেছেন।

বর্তমানে নিজ বাড়ীতে রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিক্রির জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে জানাগেছে,বাইশাকান্দা ইউনিয়নের খাগাইল গ্রামের কৃষক সৌখিন খামারী সফুরউদ্দিনের ছেলে মোঃ শাজাহান মিয়া। গত চার বছর আগে তার বাড়ীর একটি ফ্রিজিয়ান জাতের গাভী থেকে ষাঁড় গরু জন্ম দেয়।এক কথায় বলা চলে গরু প্রতিপালন তার একটি নেশা। গত ৪টি বছর যাবত তাই নিজের মত করে কালো পাহাড়কে লালন পালন করেছেন। এখন তার বয়স ৪ বছর। গায়ের রং কালো বলে নাম দিয়েছে কালো পাহাড়। ষাঁড়টি বর্তমানে ৪টি দাঁত উঠেছে। কালো পাহাড় এর উচ্চতা ৫ফিট ৪ইঞ্চি এবং লম্বা ৮ফিটেরও বেশি।

ষাঁড়টির ওজন ধরা হয়েছে এক হাজার ৪শত কেজি বা ৩৫মণ।এর দাম চাওয়া হচ্ছে ২০লক্ষ টাকা। কালো পাহাড়কে আপেল, কলা, মাল্টা থেকে শুরু করে গমের ভুষি, ছোলা, কুড়া ও খোদের ভাতসহ ৬শত টাকার খাবার লাগে প্রতিদিন। এছাড়া কাচা ঘাস তো আছেই। কালো পাহাড় এতটায় শান্ত, যে কেউ শরীরে হাত ভুলিয়ে আদর করতে পারে। যার কারণে কালো পাহাড়কে দেখতে দুরদুরান্ত থেকে প্রতিদিন মানুষ ভিড় জমায়। এই ব্যাপারে গরুটির মালিক মোঃ শাজাহান মিয়া বলেন, গত ৪বছর যাবত ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড় গরুটি শখ করে নিজেই লালন পালন শুরু করি। ষাঁড়টির নাম রাখা হয়েছে কালো পাহাড়। প্রতিদিন সকালে তাকে গোসল না করালে কোন খাবার সে খাই না। তাই সকালে উঠে প্রথমে কালো পাহাড়কে আগে গোসল করানো হয়। কালো পাহাড়কে আমি ও আমার স্ত্রী শাহানাজ বেগম দেখভাল করে থাকি।তবে আমি ব্যবসার কাজে বাহিরে গেলে আমার স্ত্রী দেখে। কলো পাহাড় সম্পুর্ণ দেশীয় খাবার খায়। তাকে প্রতিদিন চার বার খাবার খায়ানো হয়। প্রতিদিন ১২ কেজি করে খাবার লাগে কালো পাহাড়ের। খাবারের মধ্যে গমের ভুষি, চালের কুড়া, ছোলা,খোদের ভাত।এছাড়া আপেল,কলা,মাল্টা খায়ানো হয়।

কালো পাহাড়কে সব সময় পরিস্কার পরিছন্ন জায়গায় রাখা হয়।সব সময়ে তার সেবা যতœ করায় কালো পাহাড় এর কোন রোগ বালায় নেয়। তাই বিধিনিষেধ এর মধ্যেও তার বাড়ীতে ভিড় জমায় কৌতুহল জনতা। ৩৫ মণ ওজনের এ গরুটির দাম উঠেছে ৮ লাখ টাকা।তবে খামাররি প্রত্যাশা আরও বেশি। এখন কালো পাহাড় কি পারবে খামারি মোঃ শাজাহান মিয়ার প্রত্যাশা পূরণ করতে। সেই জন্য শাজাহান মিয়া বলে দেখাযাক আমার ভ্যাগে কি আছে।গত বছর কোরবানির ঈদে সময় কালো পাহাড়কে ৬লাখ টাকায় বিক্রি করে ছিলাম। কিন্তু বন্যার কারণে বাড়ীতে পানি উঠায় গরুটি তারা নিতে পারে নাই।যার জন্য আমাকে আরও একটি বছর পালতে হয়েছে। ষাঁড়টি দেখতে বিভিন্ন জায়গা থেকে লোক আসছে তারা দাম বলতেছে। আশানুরুপ দাম পেলে দিয়ে দেব।করোনাকালে হাট বাজারে গিয়ে ষাঁড়টি বিক্রি না করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজ বাড়ীতে থেকে সুলভ মুল্যে বিক্রি করতে চান শাজাহান মিয়া।

এই ব্যাপারে পাশের গ্রাম থেকে দেখতে আসা মনির হোসেন ও ইমরান নামে দুইজন বলেন, আমরা লোক মুখে শুনে কালো পাহাড় দেখতে এসেছি। এসে দেডষ সত্যিই যেন এটি কালো পাহাড়। আমার জীবনেও এত বড় ষাঁড় গরু দেখিনি। শাজাহান মিয়ার ছেলে শাহীন বলেন ষাড়টি বিক্রি ও ক্রেতা আকৃষ্ট করার জন্য বিভিন্ন ভাবে সামজিক যোগাযোগ ম্যধমে (ফেসবুকে) ইউটিউবে প্রচারের করা হচ্ছে। আগ্রহী ক্রেতাগণ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানতে পারবেন ০১৭২৯-৫৪৩১৯২। এই ব্যাপারে ধামরাই উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মোঃ সাইদুর রহমান বলেন, কালো পাহাড় ষাঁড় গরুটি ফ্রিজিয়ান জাতের গরু। এর মাংস বেশ সুস্বাদু হবে। কারণ এটি সম্পুর্ণ দেশীয় খাবার খেয়ে বড় হয়েছে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে ষাঁড়টিকে লালন পালন করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত ©২০২১ দৈনিক সানরাইজ বাংলা
Theme Customized BY Theme Park BD