1. admin@dailysunrisebangla.com : admin :
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন

মিথ্যা মামলার বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০২২
  • ৮০ বার পঠিত

ঢাকার ধামরাই উপজেলার কুল্লা ইউনিয়নের মাখুলিয়া সাছনা ও বড়কুশিয়ারা মৌজাস্থ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের   শতাধিক  শিক্ষক,সেনাবাহিনী,নৌবাহিনী ও বিমান বাহিনীর কর্মকর্তারাসহ বিভিন্ন শেশাজীবি লোকজন মিলে বাড়ী করার উদ্দেশ্যে নিজ নিজ নামে জমি ক্রয় করে বালু দিয়ে ভরাট করে রাস্তাসহ উন্নয়ন কাজ করছে।পরে তাদের সাথে একত্রিত হয়ে একটি পরিকল্পিত আবাসন প্রকল্প গড়ে তুলার লক্ষে আকসির নগর পরিচালকদের নিজ নিজ নামে জমি ক্রয় করা শুরু করে। কিন্তু বদরুল সরদার ওরফে খাস বদুর নেতৃত্বে একটি চিহৃত সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ এসে চাঁদা দাবি করেন।

এছাড়া প্রকল্পের সকল উন্নয়ন কার্যক্রম তাদের মাধ্যমে করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। তাদের দাবি না মানায় জমি দখলের মিথ্যা অভিযোগ সাজিয়ে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়,জেলা প্রশাসন,উপজেলা প্রশাসন,ও পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

আজ বুধবার (১২অক্টোবর) বিকাল ৪টার দিকে সাভার পৌরসভার শিমুলতলা এলাকায় এ সংবাদ সম্মেলনের অনুষ্ঠিত হয়।সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, আকসির নগর লিমিটেড এর ব্যবস্থপনা পরিচালক মোঃ তৌহিদুল ইসলাম। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমাদের ক্রয়কৃত জমিতে উন্নয়নমুলক কাজ করতে প্রতিনিয়ত বাধাঁ প্রদান করছেন বদরুল সরদার ওরফে খাস বদুর সন্ত্রাসী চাঁদাবাজগণ। আর এই সব কাজে আমাদের দেশের সংখ্যালুগু হিন্দু সম্প্রদায়কে ব্যবহার করে সরকারী কর্মকর্তাদের ভুল বুঝিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।

এরপর বদরুল বাহিনী গত ২৪/০৫/২১ তারিখে আকসির নগর লিমিটেড এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন যার নং ৫৪১৮/২১ মামলা দায়ের করেন। কিন্তু আকসির নগর লিমেটেড এর নামে কোন জায়গা নেয়। মিথ্যা অভিযোগ সাজিয়ে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়,উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটি,ও বাংলাদেশ পুলিশের ডিআইজি ঢাকা রেঞ্জ তদন্ত কমিটি করে উভয় পক্ষের তদন্ত শেষে সংশ্লিষ্ট সকল সরকারী দপ্তরে সেগুলি জমা দেয়। সেই তদন্তে বলা হয়েছিল জোর করে জমি দখল করে বালু ভরাট এবং বসতবাড়ী উচ্ছেদে কিন্তু এর কোন প্রমাণ পায়নি তদন্ত কমিটি। তিনি আরও বলেন, বদরুল সরদার ওরফে খাস বদু তার আত্মীয় স্বজনদের দিয়ে আমাদের নামে থানায় ১৯টি এবং আদালতে ১৮টি মামলা দায়ের করেন। মামলার সকল বাদী আমাকে প্রধান আসামী করে মামলা করেন। প্রতিটি মামলায় বলা হয়েছে আমি নাকি জমির মালিকদের ও তাদের শারিরিক নির্যাতন করেছি। আমি যদি এলাকার কোন মানুষকে নির্যাতন তো দুরের কথা একটি থাপ্পড় দিয়েছি এমন প্রমাণ দিতে পারলে সকল শাস্তি মাথা পেতে নিব।তাই সুষ্ঠ তদন্ত করে মামলা গুলো নিস্পত্তির আহবান জানাচ্ছি। এছাড়া নদীর খাস জমিকে নিজের জমি দেখিয়ে এবং আমাদের কাছে জমি বিক্রি করে আবার সেই জমি দিয়ে খাস বদু আমাদের নামে কয়েকটি মামলা করেছে।

একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হওয়া সত্বেও জামাত বিএনপির রাজনৈতিক সম্পৃক্ততার মিথ্যা অভিযোগ করে অপপ্রচার চালিয়ে ছিলেন। কিন্ত কথায় আছে রাখে আল্লাহ মারে কে। বাংলাদেশ পুলিশের ঢাকা রেঞ্জ অফিসের তদন্তে সেটাও মিথ্যা বলে প্রমানিত হয়েছে। আকসির নগর লিমিটেড গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জাতীয় গৃহায়ন মন্ত্রালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত একটি বৈধ আবাসন প্রকল্প। যেখানে মানুষের কর্মসংস্থান ও নিরাপদ বাসস্থান সুবিধা নিশ্চিত করতে আমরা নিরলস ভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছি। আমরা কখনো কার কোন ক্ষতি করে ব্যবসা করা ইচ্ছা আমাদের নেই। কিন্তু আমাদের বৈধ ব্যবসা পরিচালনায় কেউ চাঁদা দাবি করলে আমরা কোন ভাবেই সেটা মেনে নিব না। আমা করি আপনারা সবায় ন্যায়ের পাশে থেকে সত্য প্রচার করবেন।

পরিশেষে প্রশাসনের কাছে এই জালিয়াতি চক্রটিকে দ্রত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করছি। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আকসির নগর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও দোষী বদরুলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত ©২০২১ দৈনিক সানরাইজ বাংলা
Theme Customized BY Theme Park BD