1. admin@dailysunrisebangla.com : admin :
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন

স্ত্রী হত্যা মামলার আসামী স্বামী আটক

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : রবিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২২
  • ১১৮ বার পঠিত

ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার কাওয়ালীপাড়া বাজারের চাঞ্চল্যকর স্ত্রী জুলেখা বেগম হত্যা মামলার আসামী স্বামী মিরাজ শেখ (২২) নামে একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৪ এর একটি অভিযানিক দল।

শনিবার (২৯অক্টোবর) দিনগত রাতে যশোর জেলার অভয় নগর থানার ভাঙ্গা গেইট এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। মিরাজ শেখের বাড়ী খুলনা জেলার ডুমুরিয়া থানার ডুমুরিয়া এলাকার মোঃ হান্নান শেখের ছেলে। নিহত জুলেখা আক্তার ধামরাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের উত্তর বাস্তা আদর্শ গ্রামের সোনা মিয়ার মেয়ে।

র‌্যাব-সুত্রে জানাযায়, আসামীর মিরাজ শেখ এর বিরুদ্ধে স্ত্রী হত্যা একটি মামলা হয়। সেই মামলায় থেকে গ্রেফতার এড়ানোর জন্য লোক চক্ষুর আড়ালে সে নিজেকে আত্মগোপন করেছিল।পরিচিত লোকজন থেকে নিজেকে আড়াল করে রাখার জন্য ঘটনার পর ভাঙ্গার গেইট এলাকায় আত্মগোপন করেছিল। কিন্তু ঘটনার ২৪ঘন্টার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬সিপিসি-৩ এর সহযোগিতায় র‌্যাব-৪ এর সিপিসি-২এর একটি চৌকস আভিযানিক দল যশোর জেলার অভয় নগর থানার ভাঙ্গা গেইট এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

রোববার সকালে আসামী মিরাজ শেখকে থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব-৪। র‌্যাব-৪ এর লেঃ কমান্ডার মোহাম্মদ রাকিব মাহমুদ খান (সিপিসি-২) বলেন, গত বুধবার রাতে কাওয়ালীপাড়া বাজারে একটি ভাড়া বাসায় নিজ স্ত্রীকে হত্যা করে ঘরের ভিতরে কাথা দিয়ে ডেকে ঘরের বাহিরে দরজায় শিকল দিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরের দিন স্থানীয় লোকজন ঘরের ভিতরে জুলেখার লাশ পেয়ে ধামরাই থানা ও তার পরিবারের লোকজনকে কবর দেয়। এরপর ধামরাই থানার পুলিশ গিয়ে মালিক শামছুল হকের বাড়ী থেকে কাথা মোরানো অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। সেই ঘটনায় জুলেখার বড় ভাই আল-আমিন বাদী হয়ে ধামরাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। র‌্যাব-৪ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে জানতে পারে মিরাজ শেখ (২২) যশোর জেলার অভয় নগর থানার ভাঙ্গা গেইট এলাকায় আত্মগোপনে আছে।

সেই ভিত্তিতে গতকাল শনিবার দিনগত রাতে অভিযান চালিয়ে মিরাজ শেখকে আটক করা হয়। উল্লেখ্যঃ- গত ২৫/১০/২২ইং তারিখ মঙ্গলবার দিনগত রাতে জুলেখা ও তার স্বামী প্রতিদিনের ন্যায় খাওয়া দাওয়া শেষে শুয়ে পড়ে। পওে দিন সকালে জুলেখার স্বামী মিরাজ ঘরে শিকল দিয়ে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায়। দিন গড়িয়ে রাত হলেও তার স্বামী আর বাড়ীতে ফিরে আসেনি। জুলেখার পরিচিত সেলিম নামের এক ব্যক্তি সন্ধ্যার দিকে জুলেখার খোঁজ করতে আসে। তখন ঘরের দরজা বাহির থেকে আটকানো দেখে সে চলে যায়।পরে দিন সকালে আবার খোঁজ করতে আসলে পাশের রুমের এক ভাড়াটিয়া গিয়ে দরজা খুলে দেখে জুলেখা কাঁথা গায়ে বিছানায় শুয়ে আছে। তখন তারা জুলেখাকে ডাকা ডাকি করলেও সে বিছানা থেকে উঠে না।

এর পর তারা স্থানীয় ইউপি সদস্য ও থানা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে জুলেখার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।তবে নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশ ধারণা করছে জুলেখাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা স্বামী পালিয়ে গিয়েছে।পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার কওে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

পরে জুলেখার ভাই আল-আমিন বাদী হয়ে ধামরাই থানায় মিরাজ ও অজ্ঞাত নাম দিয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত ©২০২১ দৈনিক সানরাইজ বাংলা
Theme Customized BY Theme Park BD